সাপ্তাহিক ছুটিতে ঘুরে আসুন নয়াগ্রাম, কীভাবে যাবেন ? জানুন । এম ভারত নিউজ

Mbharatuser
0 0
Read Time:3 Minute, 9 Second

ছেলেবেলায় কমবেশি ছবি এঁকেছেন অনেকেই। রংতুলি পেলে সাদা খাতা ছাড়তে ভালো লাগে না কারোরই। কোথাও আবার বাড়ির লোকের জোরাজুরিতে পাড়ার আঁকার স্কুলে ভর্তি হয়েছেন অনেকেই। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে কালের নিয়মে সেসব অভ্যেস চির বিদায় জানিয়েছে অনেক মানুষকেই। তবে কারও কারও মনে আজও কিছু সুপ্ত বাসনা রয়ে গিয়েছে ওই শিল্পগুলোকে ঘিরে। কেউ ছবি আঁকে শুধু ভালোবাসার জন্য, আর কোথাও ছবি আঁকা হয় নিজেদের অস্তিত্বটাকে বাঁচিয়ে রাখার জন্য। হ্যাঁ, ঠিকই ধরেছেন আমি কথা বলছি ঐ পটুয়া সম্প্রদায়ের মানুষ গুলোর ব্যাপারে। “পটুয়া” শুনেই বোঝা যায় পট আঁকেন তাঁরা। দীর্ঘদিন ধরেই নিজেদের সম্প্রদায়ের অস্তিত্বকে টিকিয়ে রাখতেই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এই শিল্পকে উন্নত মানের করে তোলার চেষ্টায় রত হয়েছেন তাঁরা। ঠিক তেমনি এক সম্প্রদায় রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের ঝাড়গ্রামের “নয়াগ্রামে”। নয়াগ্রাম তার পট শিল্পের জন্য বিখ্যাত । প্রাচীন থেকে প্রাচীনতম পটের সম্ভার রয়েছে এই নয়াগ্রামের মিউজিয়ামে। এছাড়াও রয়েছে পটের ভাবধারার বিবর্তনের এক রূপ চিত্র। যা দেখে খুব সহজেই বোঝা যায় নিজেদের অস্তিত্বের জন্য ঠিক কতটা সংগ্রাম করেছেন এই পটুয়ারা।

অনেকক্ষণ ধরেই বললাম এই গ্রামের কথা। তবে ঠিক কী করে যাবেন এই নয়া গ্রামে? আসুন জেনে নেওয়া যাক। মহানগরী থেকে সাপ্তাহিক ছুটিতে অনেকেই নিজেদের ফাঁকা সময় কাটাতে গিয়ে থাকেন এই গ্রামে। জানা যায় মহানগরীর হাওড়া স্টেশন থেকে মেদিনীপুরগামি যেকোনও ট্রেন পৌঁছে যায় বালিচক স্টেশনে। আর সেখানে নেমেই বাস বা ব্যক্তিগত গাড়ি ভাড়া নিয়ে পৌঁছে যাওয়া যায় এই নয়া গ্রামে। বিশেষ সময় না লাগার কারণেই দিনের দিনেই ফিরে আসতে পারেন সবাই। তবে পটের গ্রাম ঘুরে দেখে পটুয়াদের হাতের কাজ পর্যবেক্ষণ না করে এবং তাদের গাওয়া পটের গান না শুনে ফিরে আসা বড় বোকামি ছাড়া আর কিছুই নয়। তাই হাতে দুটো দিন সময় নিয়েই এই পটের গ্রামে যাওয়া শ্রেয়।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

মায়ানগরীতে দাঁড়িয়ে 'জয় মরাঠা, জয় বাংলা' শ্লোগান মমতার । এম ভারত নিউজ

মঙ্গলবার সন্ধ্যাতেই মুম্বই পৌঁছে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিদ্ধিবিনায়ক মন্দিরে পুজো দিলেন । পুজো দেওয়ার পর তিনি বলেন, এর আগে বহুবার আসার ইচ্ছা থাকলেও সুযোগ হয়ে ওঠেনি। এর পাশাপাশি সেখানকার মন্দিরের পুরোহিত এবং ট্রাস্টের লোকেদের অনেক ধন্যবাদও জানান তিনি। তিনি আরোও বলেন, এখানে সবার জন্য প্রার্থনা করেছি। সময় সুযোগ হলে […]

Subscribe US Now

error: Content Protected