ইনভেস্টর পেল লাল-হলুদ । এম ভারত নিউজ

user
0 0
Read Time:4 Minute, 25 Second

ইনভেস্টর পেয়ে অবশেষে আর্থিক সংকট থেকে মুক্তি পেতে চলেছে লাল-হলুদ শিবির। জাকার্তার বাঙালি শিল্পপতি প্রসূন মুখোপাধ্যায় ফের ইস্টবেঙ্গলের সংকটের মুহূর্তে এগিয়ে এলেন ত্রাতা হিসেবে। অর্থাৎ ক্লাবের ইনভেস্টর হয়ে। তাঁর ‘ইউনিভার্সাল সাকসেস এন্টারপ্রাইজেস লিমিটেড’-এর সঙ্গে চুক্তির মাধ্যমে আর্থিক লগ্নি করতে রাজি হয়ে গিয়েছেন তিনি। জাকার্তা থেকে ফোনে এদিন তিনি বললেন, “আইনি প্রক্রিয়া চলছে। যা দেখছেন আমার আইনজীবীরা। সেগুলো মিটে গেলেই ইস্টবেঙ্গলের মেজর শেয়ার কিনে নেওয়ার জন্য আর্থিক বিনিয়োগ করছি আমি।” কোয়েস চলে যাওয়ার পরে অনেকদিন ধরেই দেশে বিদেশে বিভিন্ন সংস্থার সঙ্গে কথা বলে যাচ্ছিলেন ইস্টবেঙ্গল কর্তারা। সম্প্রতি বাংলাদেশের এক বহুজাতিক সংস্থার সঙ্গে অনেকদূর কথা এগিয়ে নিয়ে গিয়েছিলেন লাল-হলুদ কর্তারা। যদিও শেষ মুহূর্তে আইএসএল খেলার জন্য প্রতিবছর ৪০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে রাজি হননি সংস্থার কর্তারা। ইস্টবেঙ্গল কর্তারা তখন বুঝে যান, এভাবে কোনও একটা সংস্থার থেকে এই মুহূর্তে এত বড় অঙ্কের অর্থ পাওয়া যাবে না। তখন থেকেই ভাবনা শুরু হয়, একটা বড় সংস্থাকে ধরে ক্লাবের মেজর শেয়ার তাঁকে দিয়ে দেওয়া হবে। পাশাপাশি ছোট ছোট কিছু স্পনসর নিয়ে বাকি আর্থিক সমস্যাটা মেটানো হবে। সেভাবেই সিঙ্গাপুর এবং জাকার্তার শিল্পপতি প্রসূন মুখোপাধ্যায়ের নামটা মনে আসে লাল-হলুদ কর্তাদের। যিনি আশিয়ান কাপের সময় ইস্টবেঙ্গলকে সাহায্য করতে এগিয়ে আসা ছাড়াও, সালিম গোষ্ঠীকে সঙ্গী করে এই রাজ্যে বিনিয়োগ করার জন্য অনেকটাই এগিয়ে গিয়েছিলেন।


ক্লাব সূত্রে জানা গিয়েছে, ক্লাব চাইছে ৫১ শতাংশ শেয়ার নিজেদের দখলে রাখতে। প্রসূন বাবুও চাইছেন ক্লাবের থেকে বেশি শেয়ার। তবে শেষ পর্যন্ত হয়ত প্রসূন মুখোপাধ্যায়ের হাতে তুলে দেওয়া হবে ক্লাবের পঞ্চাশ শতাংশ শেয়ার। কিন্তু পঞ্চাশ শতাংশ শেয়ারের জন্য প্রসূন মুখোপাধ্যায়ের ‘ইউনিভার্সাল সাকসেস এন্টার প্রাইজেস লিমিটেড’-এর আর্থিক বিনিয়োগের পরেও বাকি টাকাটা আসবে কী ভাবে? ফেডারেশন সূত্রে খবর, ইস্টবেঙ্গল কর্তারা ফেডারেশন কর্তাদের বলেছেন, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভয় দিয়েছেন, রাজ্য সরকারের যে রাষ্ট্রায়ত্ব সংস্থাগুলি রয়েছে, তার বেশ কয়েকটি সংস্থা থেকে ইস্টবেঙ্গল ক্লাবকে স্পনসরশিপ করা হতে পারে। ফলে প্রসূন মুখোপাধ্যায় এবং রাজ্য সরকারের সহায়তায় বিভিন্ন স্পনসরারদের একটা সংস্থা তৈরি করে আর্থিক সমস্যা থেকে মুক্ত হওয়ার চেষ্টা করছে ইস্টবেঙ্গল। যার প্রাথমিক লক্ষ্য, আইএসএল খেলা। যদিও এই মুহূর্তে তা বেশ কঠিন ব্যাপার। প্রথমত কোয়েস থেকে বিচ্ছেদের ছাড়পত্র পেতে এখনও আইনি জটিলতা রয়েছে। এবং বিভিন্ন ঘটনায় দু’পক্ষের সম্পর্কটা মারাত্মক তিক্ত হয়ে রয়েছে। ফলে যা হবে সব আইনি ভাবে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

কি এমন হল যে উঁচু হাইটেনশন খুঁটিতে উঠে পড়লেন এই মহিলা, দেখুন । এম ভারত নিউজ

স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে হাইটেনশন বিদ্যুতের খুঁটিতে উঠে পড়লেন স্ত্রী। এমনই ঘটনার সাক্ষী থাকল আসানসোলের বারাবনির ভানোড়া মোড়ে। সোমবার সকালে গৃহবধূর কীর্তি দেখে রীতিমত হুলস্থুল পড়ে এলাকায়। স্থানীয়রা দেখেন, বিশাল উঁচু বিদ্যুতের হাইটেনশন লাইনের খুঁটিতে কিনারে বসে বসে পা দোলাচ্ছেন মহিলা। শাড়ি পরিহিত ওই মহিলা এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্তে ঘুরে ঘুরে […]

Subscribe US Now

error: Content Protected