বিয়ে করলেই পাওয়া যাবে তিন লক্ষ টাকা, নয়া প্রকল্প কর্নাটকের । এম ভারত নিউজ

user
0 0
Read Time:2 Minute, 28 Second

এবার বিয়ের পিঁড়িতে বসলেই মিলবে টাকা, বিয়ে করতে হবে ব্রাহ্মণ পরিবারের পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর মেয়েদের। আর্থিকভাবে নিম্নবর্তী শ্রেণীর মেয়েদের জন্য এই প্রকল্প আশীর্বাদ স্বরূপ। অর্থের অভাবে বহু বাবা বিয়ে দিতে পারেন না তাদের মেয়েদের। কোথাও বাবার আত্মঘাতী আর কোথাও মেয়েদের আইবুড়ো থেকে যাওয়ার ঘটনার দৃষ্টান্ত দেখতে পাওয়া যায় প্রায়ই সই। জনপ্রিয় প্রকল্প অরুন্ধতী এবং মৈত্রী হাসি ফোটাতে সফলতা পেয়েছে সাধারণ মানুষের মুখে।

কর্নাটকের ইয়েদুরাপ্পা সরকারের তরফ থেকে পিছিয়ে পড়া ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য গঠন করা হয় রাজ্য ব্রাহ্মণ উন্নয়ন বোর্ড। প্রথম প্রকল্প অনুযায়ী অরুন্ধতীর মাধ্যমে 25 হাজার টাকা করে পাবেন নববধূরা। এবং পরবর্তী প্রকল্প অনুযায়ী পাবেন তিন লক্ষ টাকার বন্ড তবে এই পরিমাণ আর্থিক সহায়তা পেতে গেলে কয়েকটি নির্দিষ্ট শর্ত পালন করতে হবে এই ব্রাহ্মণ দম্পতিকে।

কর্ণাটক সরকারের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যদি সেই রাজ্যের কোন ব্রাহ্মণ মেয়ে যদি সেই রাজ্যের কোন পুরোহিতের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন ,তবে পাওয়া যাবে এই আর্থিক অনুদান। পাশাপাশি এই মেয়েটিকে হতে হবে অস্বচ্ছল পরিবারের সদস্য। এবং বিবাহের পরে ব নির্দিষ্ট ধার্য করে দেওয়া সময় পর্যন্ত তাদের থাকতে হবে একসাথে , মেনে চলতে হবে বৈবাহিক সম্পর্ক। শুধু এই নয় কর্নাটকের ইয়েদুরাপ্পা সরকারের তরফ থেকে নানান প্রকল্প তুলে ধরা হয়েছে সাধারণ মানুষের কাছে। নানা বিদ সমস্যা সমাধানের জন্য তৈরি করা হয়েছে নানান বোর্ড।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

করোনা আবহে বন্ধ হতে পারে গঙ্গাসাগর মেলা । এম ভারত নিউজ

আগামী ৯ জানুয়ারি গঙ্গাসাগর মেলা শুরু হওয়ার কথা। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে রাজ্য দ্বারা গৃহীত পদক্ষেপ যথার্থ না হলে বন্ধ হতে পারে উৎসব এমনটাই জানালন কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টি বি রাধাকৃষ্ণন। এ বিষয়ে রাজ্য মুখ্য সচিব, বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এবং অন্যান্য বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে আগামীকাল হলফনামা জমা করতে নির্দেশ দেয় প্রধান […]

Subscribe US Now

error: Content Protected