‘শীঘ্রই শুরু হবে খেলা হবে প্রকল্প’, শহিদ মঞ্চে ঘোষণা মমতার। এম ভারত নিউজ

admin

মণিপুরের মহিলাদের যেভাবে অত্যাচার করা হয়েছে, তা অত্যন্ত নিন্দনীয়। বিজেপি সরকারের লজ্জা করা উচিত। মণিপুরের মহিলাদের উদ্দেশে বলব, তোমরা চিন্তা করো না, ভয় পেও না।

0 0
Read Time:4 Minute, 19 Second

একুশের সভামঞ্চ থেকে মণিপুরের ঘটনা নিয়ে সোচ্চার হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর এই ঘটনার জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকেই দায়ী করলেন। তিনি বলেন, ‘২০২৪ সালে নতুন ইন্ডিয়ার জন্ম হবে। বিজেপিকে কেন্দ্র থেকে সরিয়ে দেবেন সাধারণ মানুষ। মণিপুরের মহিলাদের যেভাবে অত্যাচার করা হয়েছে, তা অত্যন্ত নিন্দনীয়। বিজেপি সরকারের লজ্জা করা উচিত। মণিপুরের মহিলাদের উদ্দেশে বলব, তোমরা চিন্তা করো না, ভয় পেও না। আমরা তোমাদের পাশে আছি। তোমাদের নাম ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।’

মণিপুরের ঘটনায় বিজেপি সরকারকে গদিচ্যুত করার কথা বলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, ‘বিজেপিকে গদিচ্যুত করবে মহিলারাই। আপনাদের বলে রাখি, এই মহিলারাই আপনাদের উৎখাত করবেন। মহিলার কালী, দুর্গার রূপ। সকল মা–বোনেদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই। বাংলায় কিছু একটা ঘটলেই কেন্দ্রীয় দল পাঠাচ্ছে। অথচ মনিপুরের ঘটনায় মন কাঁদে না মোদীজির। ঘরে ঘরে একটাই ডাক মোদী যাক। মুখ্যমন্ত্রীদের নিয়ে দল গঠন করে মনিপুর যাব। অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সঙ্গে কথা হয়েছে।’

সভামঞ্চ থেকে কেন্দ্রের সরকারের বিরুদ্ধে সরব হয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতার অভিযোগ, চারদিকে জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে। কিন্তু চারিদিকে দাঙ্গার নামে ভাগাভাগির চেষ্টা করছে বিজেপি। বিজেপির বিরুদ্ধে মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করার অভিযোগ এনেও সরব হন মমতা। তাঁর কথায়, ‘আমি চ্যালেঞ্জ নেওয়া লোক। মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করছে বিজেপি। ত্রিপুরায় রথযাত্রায় ২৬ জন মারা গেলেন। ট্রেন দুর্ঘটনায় কত মানুষ মারা গেলেন। নমামি গঙ্গে প্রকল্পকেন্দ্রে কত জন দুর্ঘটনায় মারা গেলেন। আমি কিন্তু কিছু বলিনি। মৃত্যু নিয়ে রাজনীতি করি না। কিন্তু বাংলাতে কেউ মারা গেলেই রাজনীতি শুরু করছে বিজেপি।’

সমাবেশস্থল থেকে ১০০ দিনের কাজের টাকা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ তুলে সরব হন মুখ্যমন্ত্রী। ২১ জুলাইয়ের সমাবেশ থেকে তৃণমূল দলনেত্রী জানান, খুব শীঘ্রই বাংলার নিজস্ব টাকায় ১০০ দিনের কাজের একটি প্রকল্প শুরু করা হবে। এই প্রকল্পের নাম দেওয়া হবে ‘খেলা হবে’ বলে জানান মমতা। পঞ্চায়েতে হানাহানির ঘটনা নিয়ে বিরোধীদের তোপ দাগলেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৭১ হাজার বুথে ভোট হল। কিন্তু গোলমাল হল তিন জায়গায়। ভাঙড়, ডোমকল, ইসলামপুর। আর কোচবিহারে গন্ডগোল হয়েছে। সব থেকে বেশি খুন হয়েছেন তৃণমূল কর্মীরাই। তৃণমূল কর্মীরা কি তৃণমূল কর্মীদের খুন করবে?’ পঞ্চায়েত নির্বাচনে যাঁরা হিংসার বলি হয়েছেন, তাঁদের জন্য চাকরি এবং আর্থিক ক্ষতিপূরণের কথাও ঘোষণা করেন মমতা।

আরও পড়ুন

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Leave a Reply

Next Post

ফিরে দেখা একুশে জুলাই। ঠিক কি ঘটেছিল কলকাতায়, জানুন। এম ভারত নিউজ

একদিকে, পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিপুল সাফল্যের পরে এটাই প্রথম ২১ জুলাই। অন্যদিকে লোকসভা নির্বাচনের আগে এই শেষ ২১। অর্থাৎ দুই ভোটের মাঝে এ বছরের একুশে জুলাই।

Subscribe US Now

error: Content Protected