ট্যাক্সি থেকে ধাক্কা মারায় রাস্তায় পড়ে মৃত্যু বৃদ্ধের । এম ভারত নিউজ

user
0 0
Read Time:5 Minute, 29 Second

দিনের পর দিন হিংসা বেড়েই চলেছে| হিংসার বলি হচ্ছে বাচ্চা থেকে বুড়ো সকলেই|এরকমই এক হাড়হিম করা ঘটনার সাক্ষী থাকল খাস কলকাতা| অতিরিক্ত ভাড়া চেয়েছিল ট্যাক্সিচালক, এবং এই ভাড়া নিয়েই অসুস্থ বৃদ্ধ যাত্রীর সঙ্গে বচসা বাঁধে চালকের। তারপরই গভীর রাতে বৃদ্ধর নিথর দেহ পড়ে থাকতে দেখা যায়| পরিবারের অভিযোগ, বচসার জেরেই ট্যাক্সিচালক নির্মমভাবে গাড়ির ধাক্কা দেয় শান্তিরঞ্জন পোদ্দার(৬৪) নামে ওই বৃদ্ধকে। তাঁর পায়ের উপর দিয়ে চলে যায় ট্যাক্সির চাকা। ভেঙে যায় কোমরের হাড়। এভাবেই রাতে তিনি কয়েক ঘণ্টা রাস্তায় পড়েছিলেন। সোমবার ভোরে পর্ণশ্রীর বনমালী নস্কর রোডে ওই ব্যক্তির বাড়ির কাছেই তাঁর দেহটি পড়ে থাকতে দেখা যায়|তারপরই ওই ট্যাক্সিচালকের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ তুলেছে তাঁর পরিবার।

পুলিশের সূত্র জানিয়েছে, ঘটনাস্থল থেকে কোনও সিসিটিভির ফুটেজ না পাওয়ায় এই মৃত্যু ঘিরে রহস্য সৃষ্টি হয়েছে। তবে এক রিকসাচালক দেখেছিলেন যে, ট্যাক্সিচালকের সঙ্গে বচসা হচ্ছে ওই বৃদ্ধর। ময়নাতদন্তের পর চিকিৎসকরা পুলিশকে জানিয়েছেন, পিছন থেকে গাড়ি ওই ব্যক্তিকে প্রচণ্ড জোরে ধাক্কা দেয়। গাড়ির চাকা তাঁর বাঁ পায়ের উপর দিয়ে চলে যায়। তাঁর বাঁ পায়ের হাড় ভেঙেছে। এছাড়াও জোরে ধাক্কার কারণে কোমর ও শরীরের আরও কয়েকটি জায়গার হাড় ভেঙে গিয়েছে। পথ দুর্ঘটনার ফলেই মৃত্যু হয়েছে ওই ব্যক্তির। এক পুলিশ আধিকারিক জানান, ওই ট্যাক্সিটির ধাক্কায় তাঁর মৃত্যু হয়েছে, এমন সম্ভাবনা রয়েছে। কিন্তু ইচ্ছা করে ট্যাক্সিচালক তাঁকে ধাক্কা দিয়েছে না কি, দুর্ঘটনাবশত ঘটনাটি ঘটেছে, তা তদন্তসাপেক্ষ। আসল ঘটনাটি জানতে পুলিশ ওই ট্যাক্সিচালকের সন্ধান চালাচ্ছে।

শান্তিরঞ্জনবাবুর স্ত্রী অন্নপূর্ণা পোদ্দার জানান, তাঁর স্বামী প্রস্টেটের অসুখে ভুগছিলেন। তাই তাঁর ক্যাথিটার পালটানোর প্রয়োজন হত। রবিবার রাতে তিনি অসুস্থ বোধ করায় বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ক্যাথিটার পালটাতে যান। কিন্তু ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাঁকে কলকাতা ন্যাশনাল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে যেতে বলেন। রাত এগারোটার পর তিনি বাড়িতে আসেন। স্ত্রীর কাছ থেকে হাজার টাকা নেন। অন্নপূর্ণা জানান, তিনি স্বামীকে ট্যাক্সিতে যাতায়াত করতে বলেছিলেন। রাত দেড়টা নাগাদ তিনি স্ত্রীকে ফোন করে জানান, হাসপাতালে তাঁর কাজ হয়ে গিয়েছে।

এবার পার্ক সার্কাস থেকে তিনি বাড়িতে ফিরছেন। এর পর তিনি স্ত্রীকে মোবাইলে জানান, অটো করে তিনি হাজরা মোড়ের কাছে এসেছেন। অপেক্ষা করছেন ট্যাক্সির জন্য। এর পর থেকে স্ত্রী স্বামীর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেননি। মৃত ব্যক্তির স্ত্রী অন্নপূর্ণা পোদ্দার জানান, আলো ফুটতেই ভোর সাড়ে চারটের কিছু পর তিনি ও এক প্রতিবেশী শান্তিরঞ্জনবাবুর খোঁজে বের হন। বাড়ি থেকে একটু দূরে রাস্তার উপর স্বামীকে পড়ে থাকতে দেখেন। তিনি জানান, স্বামী রাস্তার উপর উপুড় হয়ে পড়ে ছিলেন। দুই পা যে ভেঙে গিয়েছে, স্পষ্ট বোঝা যাচ্ছে। পা থেকে বের হচ্ছে রক্ত। তখনও ক্যাথিটারের প্লাস্টিক তাঁর সঙ্গে রয়েছে। একটু দূরে পড়ে রয়েছে তাঁর মানিব্যাগ। মানিব্যাগের ভিতর থেকে উধাও হয়ে গিয়েছে টাকা ও অন্যান্য কাগজপত্র।তারপর অন্নপূর্ণা ও ওই প্রতিবেশী চিৎকার, চেঁচামেচি করে অন্য প্রতিবেশীদের ডাকেন। পর্ণশ্রী থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানেই তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

ছ'মাস আগেই শীতলকুচির পরিকল্পনা করেছিল বিজেপি : অভিষেক । এম ভারত নিউজ

রাজ্যে রাজনৈতিক চাপানউতর চরম পর্যায়ে| শাসক বিরোধী দুই দলের ই সংঘর্ষ লেগে রয়েছে,শীতলখুচি গুলি-কাণ্ডকে কেন্দ্র করে|ওই ঘটনা পুরোপুরি পরিকল্পনা করে ঘটানো হয়েছে বলে দাবি করলেন যুব তৃণমূলের সভাপতি অভিষেক। অভিষেকের মতে, ছ’মাস আগেই শীতলখুচির ছক কষেছিল বিজেপি। সোমবার ওদলাবাড়িতে এক জনসভায় এ ভাবেই বিজেপি-কে আক্রমণ করেন তিনি।সোমবারের জনসভায় বিজেপি-র রাজ্য […]

Subscribe US Now

error: Content Protected