নৃত্য প্রতিযোগিতায় পূর্ব মেদিনীপুরের মুখ উজ্জ্বল করল দুই বোন । এম ভারত নিউজ

user
0 0
Read Time:2 Minute, 30 Second

নিজস্ব প্রতিনিধি, পূর্ব মেদিনীপুর: একই পরিবারের দুই বোন এবার এক ইন্টারন্যাশনাল নৃত্য প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করল। অনন্য এই নজির গড়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মুখ উজ্জ্বল করলেন এই জেলার চন্ডিপুরের দুই মেয়ে মিশ্রতা বেগম ও তনুজা বেগম।

তাদের এই কর্মকান্ডে গর্বিত পুরো জেলাবাসী। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে যে গত ১৪ই মার্চ তারা উড়িষ্যা যান এবং পরপর তিন দিন ধরে চলা এই প্রতিযোগিতায় প্রতিযোগিতার শেষ দিনে নিজেদের সর্বোচ্চ প্রদর্শন করে এই ইন্টারন্যাশনাল নৃত্য প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে এই দুই কৃতি বোন। এত বড় একটি প্রতিযোগিতায় এই সম্মান পেয়ে দুই বোন যথেষ্টই আপ্লুত। প্রতিযোগিতার পর সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে তারা বলেন যে এই প্রথম তারা রাজ্যের বাইরে গিয়ে এত বড় ধরনের নৃত্য প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করলেন। প্রথমবারেই তারা যে এরকম একটি প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করবেন, এমনটা কখনও ভাবেননি তারা।

ভবিষ্যতে তারা এই নৃত্য নিয়েই আরো অনেক দূর এগিয়ে যেতে চায়, এবং এটিকেই পেশা হিসেবে বেছে নিতে চায়। শুধুমাত্র নৃত্য নয়, নাচের সাথে সাথে তারা গান ও ভায়োলিন বাজাতেও খুব ভালো বাসেন, সেই কাজে তারা যথেষ্ট পারদর্শীও বটে।

দুই বোনের এরকম সাফল্যের খবর সমগ্র জেলায় ছড়িয়ে পড়ার পরই বিভিন্ন দিক থেকে শুভেচ্ছাবার্তায় ভাসতে থাকেন তারা। ভবিষ্যতে এরকম প্রতিযোগিতায় আবার এই দুই বোন পূর্ব মেদিনীপুর জেলা তথা সমগ্র রাজ্য এবং সমগ্র দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে, এমনটা আশা করাই যায়।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

খেলনা বন্দুক দেখিয়ে বাড়িতে ঢুকে অসংলগ্ন আচরণ যুবকের । এম ভারত নিউজ

নিজস্ব প্রতিনিধি, বাঁকুড়া: এবার দিনে-দুপুরে এক চাঞ্চল্যকর ঘটনা ঘটে গেল বাঁকুড়া জেলার ইদগামহল্লা অঞ্চলে। দিনে দুপুরে বাঁকুড়ার এই ইদগামহল্লা অঞ্চলে এক যুবক অসংলগ্ন অবস্থায় একটি বাড়িতে ঢুকে পড়ে। অসংলগ্ন অবস্থায় বাড়িতে ঢুকে ওই বাড়ির গৃহকর্ত্রীর কাছ থেকে মোবাইল চার্জার চাইতে থাকে ওই যুবক। সে সময় ওই গৃহকর্ত্রী শর্মিলা বিবি যুবকটিকে […]

You May Like

Subscribe US Now

error: Content Protected