টাই বেঁধে বিশ্ব রেকর্ড! নজির কলেজ পড়ুয়ার। এম ভারত নিউজ

admin

এক কথায় সামিনের একনিষ্ঠ মনোভাবের কারণে এটা সম্ভব হয়েছে

0 0
Read Time:4 Minute, 12 Second

সামিন মার্কেটিংয়ের ছাত্র। পেশায় একজন উদ্যোক্তা। লেখালেখি, গানের প্রতিও ঝোঁক আছে তাঁর। সামিন জানান, ২০২২ সালের আগস্টে আবেদন করেন তিনি। নভেম্বরে আবেদনটি গ্রহণ করে কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে রেকর্ডের ভিডিও প্রমাণ চায় তারা। তখন প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে কয়েকজনকে আমন্ত্রণ জানন সামিন। পাশাপাশি সময় পরিমাপ ও ভিডিও ধারণের জন্য ডিভাইসও প্রস্তুত রাখেন। এরপর ভিডিও ও অন্যান্য জিনিসপত্র পাঠানো হলে এ বছর ফেব্রুয়ারিতে দ্রুততম সময়ে উইন্ডসর নট বাঁধার স্বীকৃতি পান সামিন। এরই মধ্যে তাঁর হাতে এসে পৌঁছেছে গিনেস সনদ।

সামিন বলেন, ‘কথায় আছে প্র্যাকটিস মেকস আ ম্যান পারফেক্ট। আমি বিশ্বাস করি, কথাটি একজন মানুষের জীবনে খুবই সত্য। সঙ্গে দরকার হয় সংকল্প। অনুশীলন আর সংকল্প—এই দুই-ই আমাকে এগিয়ে রেখেছে।’ নিজের দক্ষতা কাজে লাগিয়ে আরও রেকর্ড করার স্বপ্ন দেখেন এই তরুণ। এক কথায় সামিনের একনিষ্ঠ মনোভাবের কারণে এটা সম্ভব হয়েছে।

টাই বাঁধার কৌশল শিখতে অনেকে যেখানে ‘ইউটিউব টিউটোরিয়াল’-এর শরণাপন্ন হন, সেখানে এই টাই বেঁধেই গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের স্বীকৃতি পেলেন বাংলাদেশের এক পড়ুয়া।বাংলাদেশের ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থী সামিন রহমান। স্কুলে পড়ার সময়ই বিভিন্ন ধরনের টাই বাঁধতে পারতেন সামিন। টাই বাঁধার নতুন নতুন ধরন শেখার চেষ্টা করতেন। কিন্তু টাই বেঁধে যে বিশ্ব রেকর্ডও করা সম্ভব, তা কখনো মাথায় আসেনি। মূলত টাই বাঁধার যে ধরনটির জন্য তিনি বিশ্ব রেকর্ড করেছেন, তার নাম ‘উইন্ডসর নট’। এই স্টাইলে সর্বনিম্ন সময়ে টাই বাঁধার আগের রেকর্ড ছিল ১২ দশমিক ৮৯ সেকেন্ড। সেখানে সামিন মাত্র ১০ দশমিক ৯২ সেকেন্ডেই কাজটি সম্পন্ন করেন।

সামিন মার্কেটিংয়ের ছাত্র। পেশায় একজন উদ্যোক্তা। লেখালেখি, গানের প্রতিও ঝোঁক আছে তাঁর। সামিন জানান, ২০২২ সালের আগস্টে আবেদন করেন তিনি। নভেম্বরে আবেদনটি গ্রহণ করে কর্তৃপক্ষ। একই সঙ্গে রেকর্ডের ভিডিও প্রমাণ চায় তারা। তখন প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবে কয়েকজনকে আমন্ত্রণ জানন সামিন। পাশাপাশি সময় পরিমাপ ও ভিডিও ধারণের জন্য ডিভাইসও প্রস্তুত রাখেন। এরপর ভিডিও ও অন্যান্য জিনিসপত্র পাঠানো হলে এ বছর ফেব্রুয়ারিতে দ্রুততম সময়ে উইন্ডসর নট বাঁধার স্বীকৃতি পান সামিন। এরই মধ্যে তাঁর হাতে এসে পৌঁছেছে গিনেস সনদ।

সামিন বলেন, ‘কথায় আছে প্র্যাকটিস মেকস আ ম্যান পারফেক্ট। আমি বিশ্বাস করি, কথাটি একজন মানুষের জীবনে খুবই সত্য। সঙ্গে দরকার হয় সংকল্প। অনুশীলন আর সংকল্প—এই দুই-ই আমাকে এগিয়ে রেখেছে।’ নিজের দক্ষতা কাজে লাগিয়ে আরও রেকর্ড করার স্বপ্ন দেখেন এই তরুণ। এক কথায় সামিনের একনিষ্ঠ মনোভাবের কারণে এটা সম্ভব হয়েছে।

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %

Leave a Reply

Next Post

উত্তপ্ত লোকসভা! রাহুলের বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ মহিলা সাংসদের। এম ভারত নিউজ

এই বক্তব্যের পর সংসদের নিম্নকক্ষে ভয়ানক উত্তেজনা তৈরি হয়, রাহুলকে এই মন্তব্যের জন্য ক্ষমাও চাইতে বলেন

You May Like

Subscribe US Now

error: Content Protected